,

আগামী শুক্রবার চ্যানেল আইতে বর্ণনাথ পরিচালিত টেলিছবি ‘নীল অপরাজিতা’


নেজাম উদ্দিন রানা :

আগামী ২ নভেম্বর শুক্রবার চ্যানেল আইতে প্রচারিত হবে রাউজানের বাগোয়ান ইউনিয়নের সন্তান, সময়ের ব্যস্ত নাট্য পরিচালক বর্ণনাথ পরিচালিত টেলিছবি ‘নীল অপরাজিতা’। 

টেলিছবির কাহিণী নিন্মরূপ:

অপরাজিতা গান গাইছে। ‘দাঁড়িয়ে আছ তুমি আমার গানেরওপারে’ এই গানটি শাজাহানের খুবই প্রিয় একটি গান। কন্ঠটিওঅনেক পরিচিত। কলকাতায় থাকাকালীন সময় মাঝে মাঝেএই গানটি ভেসে আসতো পাশের বাড়ী থেকে। মন্ত্রমুগ্ধের মতশুনতো শাজাহান। এখনও গানটি গাইছে অপরাজিতা। যেরাতে অন্ধাকারে তার বাড়ীতে আশ্রয় নিয়েছে। কে এইঅপরাজিতা? আজ থেকে পঁয়তাল্লিশ বছর আগের সেই কন্ঠসেই সুর। শাজাহান কবীর অপরাজিতার কাছে জানতে পারেসেই মেয়েটির নাম আরতী। অপরাজিতা আরতীর লেখা একটিপ্রেমের চিঠি শাজাহানকে ধরিয়ে দেয়। একটি মেয়ের অভিমানভরা দুরন্ত আবেগ দিয়ে লেখা প্রেমের চিঠি। অনেক পুরাতন।আরতীর গভীর আবেগময় চিঠিটা অপরাজিতাকে এখানেআসতে বাধ্য করেছে। সে হলো আরতীর মেয়ে। আরতী কয়েকবছর আগে মারা গেছে। কিন্তু আরতী প্রেমতো মরেনি।পঁয়তাল্লিশ বছর আগের সেই প্রেম এখনও জীবন্ত। এখনওআবেগগুলো সেখানেই আটকা পরে আছে। বাবা মারা যাওয়ারপর শাজাহান আর কলকাতায় যায়নি। তাই আরতীর প্রেম শুধুএই চিঠিতে বেঁচে আছে। অপরাজিতা শুধু এই চিঠিটা দেওয়ারজন্যেই বাংলাদেশে এসেছে। শাজাহানের চোখ দিয়ে পানিগড়িয়ে পরে। অনেক দিন পর আনন্দের অশ্রু ঝরছেশাজাহানের চোখ দিয়ে। শাজাহান ভেবেছিল তার জীবনকাঁটাহীন, বৈচিত্রহীন কাঁশ জঙ্গলের লতায় জড়ানো। 

যেজীবনের কোন স্বার্থকতা নেই। হঠাৎ অপরাজিতা এসে তারজীবনকে খানিকটা স্বার্থক করে তুলে। নিঃসন্তান শাজাহানসবার কাছে পরিচয় করিয়ে দেয় এটি তার মেয়ে। আলী আক্কাসতার সাংবাদিকতার জীবনে এই প্রথম চরম জনপ্রিয় একটিনিউজ করে। অপরাজিতা, আরতী ও শাজাহানকে নিয়ে। এইপাড়াগাঁওয়ের এমন একটি সংবাদ দেশব্যাপী আলোড়ন তোলে।একটি রিপোটেই আলী আক্কাস সেলিব্রেটি সাংবাদিক হয়ে উঠে।পাশাপাশি অপরাজিতার সঙ্গেও মিষ্টি সম্পর্ক গড়ে উঠে।শাজাহান অপরাজিতাকে তার জীবনে আলোকবর্তিকা মনেকরতে থাকে। কথা না বলা একটি প্রেমের সম্পর্ক যে এতটা মহৎহতে পারে এই বয়সে এসে শাজাহান উপলব্ধি করতে থাকে।শাজাহানের অর্থহীন জীবনে আরতীর না বলা প্রেম তারজীবনকে অর্থবহ করে তুলে। যে শাজাহানের জীবনে পিছুটানেরযন্ত্রনা বা উল্লাস কোনটাই ছিল না। অপরাজিতাকে পেয়ে পিছুটানের উল্লাস খুঁেজ পাচ্ছে। তার মনে হচ্ছে এবার মারা গেলেতার জন্য নিঃশব্দে বা শব্দ করে কান্নার মানুষ একজন হলেওপৃথিবীতে থাকবে। তাই গোপনে তার সকল সম্পত্তি অপরাজিতানামে উইল করে ফেলে। বিষয়টি গোপন থাকে না। শাজাহানেরচাচাতো ভাই শয়তান রাকিব শেখ সকল কিছু জেনে যায়।রাকিব অপরাজিতাকে নিয়ে নোংড়া খেলায় মেতে উঠে।

অপরাজিতাকে অপমান করে গ্রাম থেকে তাড়িয়ে দিতে চায়।আলী আক্কাস ও শাজাহানের বাঁধার মুখে রাকিব শেখ সেটাকরতে পারে না। এতে রাকিব আরো উত্তেজিত হয়েঅপরাজিতাকে র এর এজেন্ট বলে টাকা দিয়ে পুলিশ নিয়ে এসেঅপরাজিতা ধরিয়ে দেয়। সে রাতেই অপরাজিতাকে বাঁচাতে নাপারার যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরে শাজাহান স্টোক করে মারাযায়। মারা যাওয়ার আগে আলী আক্কাসকে তার সকল সম্পত্তিও অপরাজিতের দ্বায়িত্ব দিয়ে যায়। বাঁচাল আলী আক্কাস হয়েউঠে এক দ্বায়িত্ববান মানুষ। উপর মহলে যোগাযোগ করে আলীআক্কাস অপরাজিতাকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসে। এমনই একপ্রেমময় জীবন ঘনিষ্ট গল্প নিয়ে পরিচালক বর্ণনাথ নির্মাণকরেছেন টেলিছবি নীল অপরাজিতা। নাট্যকার স্বাধীন শাহ্ ওবর্ণনাথের যৌথ রচনায় টেলিছবি নীল অপরাজিতা দেশেরজনপ্রিয় টিভি চ্যানেল চ্যানেল আইতে আগামী ২ নভেম্বরবিকাল ৩টায় প্রচারিত হবে। নীল অপরাজিতায় অভিনয়করেছেন খায়রুল আলম সবুঝ, শিল্পী সরকার অপু, মীরসাব্বির, সামিয়া অথৈ, জয়রাজ, তারিক স্বপন, নূর আলমনয়ন, আশরাফ করিব, শিখা খানসহ আরো অনেকেই।

মতামত দিন