,

রাউজানে আবারো সন্ত্রাসীরা সক্রিয় হয়ে উঠছে, অস্ত্র সহ আটক-১

শফিউল আলম,রাউজানবার্তা :-:
রাউজানে অস্ত্র সহ পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে মহরম (২৮) নামের এক সন্ত্রাসী। রাউজান উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সন্ত্রাসীরা আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে। সন্ত্রাসীরা এলাকায় পাহাড়ী চোলাই মদ, ইয়াবা পাচার করে আসছে । রাউজানের হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তর সর্তা এলাকায় ইয়াবা ট্যাবলয়েট ব্যবসা করছে এলাকার সন্ত্রাসীরা। রাউজানের উত্তর সর্তা তোতাগাজীর বাড়ীর আফাজ নামের এক যুবককে রাউজান থানার এস আই মুরাদ একদল সাদা পোষাকধারী পুলিশ নিয়ে গত ২৬ ফেব্রুয়ারী রবিবার দিবাগত রাতে গ্রেফতার করার জন্য তার বাড়ীতে অভিযান চালায়। এই সময়ে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আফাজ ঘর থেকে পালিয়ে যায়। পুলিশ ঐ সময়ে সোলায়মান নামের এক সন্ত্রাসীকে আটক করলে সোলায়মান পুলিশকে ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার দিলে সোলায়মান ও এলাকার লোকজন এসে পুলিশ থেকে সোলায়মানকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সোলায়মানকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনার সংবাদ পেয়ে রাউজান থানা থেকে আরো পুলিশ গিয়ে ঐ রাতে পালিয়ে যাওয়া আফাজের মাতা গোলবাহার খাতুন, সোলায়মানের মাতা আনোয়ারা বেগমকে ধরে থানায় নিয়ে আসেন। গত ২৭ ফেব্রুয়ারী সোমবার পুলিশ তাদেরকে ছেড়ে দেয় বলে হলদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম জানান । রাউজান থানার এস আই মুরাদ ঘটনার কথা স্বীকার করলে ও রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্যাহ এই ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি বলে দাবী করেন। অপরদিকে গত ২৭ ফেব্রুয়ারী সোমবার সকাল দশটার সময়ে রাউজান পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের পশ্চিম সুলতান পুর সরতের দোকান এলাকা থেকে রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্যাহ ও এস আই সাইমুল একদল সাদা পোষাকধারী পুলিশ নিয়ে অভিযান চালিয়ে মহরম (২৮) নামের এক সন্ত্রাসীকে একটি বিদেশী পিস্তল, ছয়রাউন্ড গুলি, একটি ম্যগজিন ও একটি ছুরি সহ গ্রেফতার করে। সন্ত্রাসী মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার পর রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্যাহ গত সোমবার সারাদিন সংবাদকর্মীদের সাথে এই ঘটনা আড়াল করার প্রচেষ্টায় মেতে উঠেন। গত সোমবার দিবাগত রাত ১১ টার সময়ে ফেইসবুকে সন্ত্রাসী মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার ছবিটি পোষ্ট করেন। সন্ত্রাসী মহরম অস্ত্র সহ গ্রেফতারের ছবিটি পোষ্ট করার পর রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্রাহ ফোন করে সাংবাদিকদের মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন গত সোমবার রাত ১১টার সময়ে। রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্যাহর কাছে জানতে চাইলে সন্ত্রাসী মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার পর সারাদিন এই ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে ও তা লুকোচুরি করার পর রাত ১১ টার সময়ে কেন এই বিষয়ে জানানো হচ্ছে। জবাবে রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্ল্রাহ বলেন সন্ত্রাসী মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার পর উর্ধত্বন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। উর্ধত্বন কতৃপক্ষের অনুমতি না পাওয়ায় তা গোপন রাখা হয়েছিলো রাতে অনুমতি পাওয়ার পর সাংবদিকদের জানানো হয়েছে ও ফেইসবুকে সন্ত্রাসী মহরমকে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করার ছবিটি পোষ্ট করা হয়েছে।
রাউজান থানার ওসি কেফায়েত উল্লাহ আরো জানান, সন্ত্রাসী মহরমের কাছে একটি বিদেশী পিস্তল ছয় রাউন্ড গুলি একটি ম্যগজিন ও একটি ছুরি পাওয়া গেছে। সন্ত্রাসী মহরমের বিরুদ্বে রাউজান থানায় অস্ত্র আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে। সন্ত্রাসী মহরম রাউজানের পশ্চিম রাউজান চারা বটতল এলাকায় গত ২০১৫ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারী নিহত সন্ত্রাসী শহীদের হত্যা মামলার আসামী বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার সন্ত্রাসী মহরমকে আদালতে সোর্পদ করেছে পুলিশ। সন্ত্রাসী মহরম রাউজানের চিকদাইর ইউনিয়নের পাঠান পাড়া এলাকার আবু মেম্বারের বাড়ীর আমিনুর রহমানের পুত্র। রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় সন্ত্রাসীরা আবারো সক্রিয় হয়ে উঠেছে বলে জানান এলাকার লোকজন। সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে পাহাড়ী চোলাই মদ, ইয়াবা ট্যাবলয়েট পাচার করছে। সক্রিয় হওয়া সন্ত্রাসীরা রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় প্রকাশ্য দিবালেকে ঘুরে বেড়ানোর ফলে এলাকার মানুষের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়েছে।

One comment

  1. ঐ এলাকা এখন বাব উত্তর সর্তা নামে বেশ পরিচিত লাভ করছে।এখানে যাদের নাম দেয়া হয়েছে তারা ছাটাছুডা আসল গড ফাদার দের নাম আসে নাই।সংবাদিক শফিল ভাই কে ধন্যবাদ সাহসী সংবাদ লেখার জন্য✌✌✌

মতামত দিন