রাউজানে ডাকাত সেলিম অস্ত্র সহ আটক, সন্ত্রাসী ধামা ইলিয়াছ সহ তার সহযোগীরা ধরা পড়েনি

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজান উপজেলার কদলপুর ইউনিয়নের পাহাড়ী এলাকা শমশের পাড়া, ভোমরপাড়া, দক্ষিন শমশের পাড়া, ইসলামিয়া নতুন পাড়া, কদলপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পোমরা, রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার মনাই পাড়া, নাকাটা, তালতলা, দোচালা, ডিলাইট, চিকনছড়া, ভোমরঢালা এলাকায় সন্ত্রাসী, ডাকাতদের আস্তানা।

রাউজানের এসব পাহাড়ী এলাকা ও রাউজান উপজেলা সীমনায় রাঙ্গামাটি জেলার পাহাড়ী এলাকা ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পোমরা পাহাড়ী এলাকায় সন্ত্রাসী ডাকাত দলের সদস্যরা অবস্থান করে রাতেই রাউজানের কদলপুর ও রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় এসে চুরি, ডাকাতি সংগঠিত করে।

এছাড়াও রাউজানের কদলপুর পাহাড়ী এলাকায় আস্তানায় থেকে সন্ত্রাসীরা মাদক পাচার করে আসছে। রাউজান থানা পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও ডাকাত ধামা ইলিয়াছ, ডাকাত সেলিম, সন্ত্রাসী হারুন সহ তাদের সহযোগীরা রাউজানের পাহাড়ী এলাকায় আস্তানা গড়ে তোলে অপরাধ কর্মকান্ড করে আসছে।

গত ২৮ জুন সোমবার ভোররাতে রাউজানের কদলপুর পাহাড়ী এলাকার ইসলামিয়া নতুন পাড়া এলাকা থেকে ডাকাত সেলিম (৩৬) কে অস্ত্র সহ গ্রেফতার করে।

রাউজান রাঙ্গুনিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন শামিম, রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুনের নেতৃত্বে সাদা লুঙ্গি ও গেঞ্জি, শাট পড়া ছদ্দবেশ ধারন করে পুলিশের দল অভিযান চালায় বলে রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন জানান।

পাহাড়ী এলাকা থেকে সন্ত্রাসী ও ডাকাত সেলিমকে আটক করার পর তার কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈয়ারী এলজি, একটি খেলানার রিবলভার, ২ রাউন্ড কার্তুজ, একটি রাম দা, একটি কিরিচ, একটি ছুরি উদ্বার করা হয় ।

সন্ত্রাসী ও ডাকাত সেলিমের বিরুদ্বে রাউজান থানায় ডাকাতি ও হত্যা মামলা রয়েছে ৫টি। গত সোমবার সন্ত্রাসী ও ডাকাত সেলিমকে গ্রেফতার করার পর পুলিশ আদালতে সোর্পদ করে। সন্ত্রাসী ও ডাকাত সেলিমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে বলে রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন জানান।

এদিকে সন্ত্রাসী ও ডাকাত সেলিমকে পুলিশ অস্ত্র সহ গ্রেফতার করা হলে ও সন্ত্রাসী ও ডাকাত ধামা ইলিয়াছ, সন্ত্রাসী হারুন তার সহযোগীরা আটক না হওয়ায় রাউজানের কদলপুরের সাধারন মানুষের মনে চরম আতংক বিরাজ করছে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *