৭ কোটি টাকা ব্যয়ে হলদিয়া ভিলেজ রোডের নির্মন কাজ শেষ পর্যায়ে, দুর্ভোগ লাঘব হবে রাউজান ফটিকছড়ির হাজার মানুষের

 

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজান উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের আমির হাট থেকে শুরু হওয়া হলদিয়া ভিলেজ রোড। হলদিয়া ভিলেজ রোডটি হলদিয়া ইউনিয়নের গর্জনিয়া, হলদিয়া রাবার বাগান, উত্তর সর্তা, হলদিয়া, বাজ্যার হাট, দক্ষিন ক্ষিরাম, শিরনী বটতল, হয়ে হচ্ছার ঘাট এলাকায় গিয়ে সর্তার খালের সাথে মিলিত হয়।

হলদিয়া ভিলেজ রোড দিয়ে ফটিকছড়ি উপজেলার ক্ষিরাম, ধর্মপুর, আধার মানিক এলাকার বাসি›দ্বারা ও নিয়মিত যাতায়াত করে।

হলদিয়া ভিলেজ রোড দিয়ে প্রতিদিন রাউজান ফটিকছড়ি উপজেলার হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। হলদিয়া ভিলেজ রোড এর পাশে রয়েছে এয়াসিন শাহ কলেজ, এয়াসিন শাহ উচ্চ বিদ্যালয়, হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ, হলদিয়া রাবার বাগান, গর্জনিয়া ফাজিল মার্দ্রাসা, গর্জনিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যলয়, হলদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, হলদিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, বইজ্যার হাট বাজার, সাজেদ কবির চৌধুরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ।

প্রতিদিন স্কুল কলেজ মার্দ্রাসার হাজার হাজার শিক্ষার্থী ও শিক্ষক চলাচল করে হলদিয়া ভিলেজ রোড দিয়ে । রাউজান ফটিকছড়ি উপজেলার হাজার হাজার মানুষের চলাচলের সড়ক হলদিয়া ভিলেজ রোড স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিধপ্তরের অর্থায়নে কয়েকবার ব্রীক সলিং ও কিছু অংশ কাপোটিং এর কাজ করে।

সর্তা খাল থেকে অবৈধ ভাবে উত্তোলন করা বালু ভর্তি ট্রাক ও জীপ চলাচলের ফলে সড়কের উন্নয়ন কার করার পর পর সড়কটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে সড়কটি যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে । এছাড়া ও গত দুই বৎসর পুর্বে বর্ষার মৌসুমে সতঅ খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে সড়কটি ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

এরপর হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হয় । এলাকার হাজার হাজার মানুষের চলাচলের চরম দুর্ভোগ লাঘব করতে এগিয়ে আসেন রেলপথ মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি । সাংসদ ফজলে করিম চৌধুরীর একান্ত প্রচেষ্টায় স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর সড়কটি নির্মানের জন্য টেন্ডার আহবান করলে জে, জে, বিল্ডার্স নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্টান সড়কের নির্মান কাজ নেয় ।

৭ কোটি টাকা ব্যয়ে হলদিয়া ইউনিয়নের হলদিয়া হচ্ছার ঘাট থেকে আমির হাট পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ হলদিয়া ভিলেজ রোডের ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের পক্ষে হলদিয়ার দুবাই প্রবাসী মোঃ মুছা মিয়াগত দেড় বৎসর পুর্বে সড়কের নির্মান কাজ শুরু করে। সড়ক প্রশস্তকরন করে সড়কে লোহার রড দিয়ে আর সি, সি ঢালাই করে সড়কের নির্মান কাজ করেন। ৬ কিলোমিটার দৈর্ঘ হলদিয়া ভিলেজ রোড এর নির্মান কাজ হলদিয়া হচ্ছার ঘাট থেকে হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন পযন্ত শেষ হয়েছে ।

হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন থেকে আমির হাট পর্যন্ত সড়কের নির্মান কাজ ১৫ দিনের মধ্যে শেষ করতে পারবে বলে আশা করছেন হলদিয়া ভিলেজ রোডের নির্মান কাজের ঠিকাদার মোঃ মুছা মিয়া।

রাউজান উপজেলা প্রকৌশলী আবুল কালাম বলেন, হলদিয়া ভিলেজ রোডের নির্মান কাজ শীঘ্রই শেষ হবে । হলদিয়া ভিলেজ রোডের নির্মান কাজ শেষ হলে রাউজান ফটিকছড়ির হাজার হাজার মানুষের চলাচলের দুভোর্গ লাঘব হবে বলে জানান গর্জনিয়া ফাজিল মার্দ্রাসার শিক্ষক হাবিবুল জাকেরিয়া রাসেল ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *