রাউজানে মসজিদ ও আস্তানায় চুরি

 

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলার ১ নং হলদিয়া ইউনিয়নের উত্তরসর্তা দরগাহছড়ি বাজারে অবস্থিত হযরত আবদুল কাদের জিলানী আস্তানা শরীফের দান বাক্স ভেঙ্গে দান বাক্সেও থাকা টাকা ও তোতা গাজীর বাড়ী জামে মসজিদের দান বাক্স ভেঙ্গে দান বাক্সে রক্ষিত টাকা চুরি করে নিয়ে যায় চোর বা চোরের দল।

গত ৩ জুলাই শনিবার দিবাগত রাতে এই চুরির ঘটনা সংগঠিত হয় ।

মসজিদ সংশ্লিষ্ট ও স্থানিয়দের সাথে কথা বলে জানাগেছে ( শনিবার) গভীর রাতে হলদিয়া ইউপির ২নং ওয়াডের তোতাগাজী বাড়ী শাহে মসজিদের বারান্দা ও মূল ভবনের দরজার তালা ভেঙ্গে মসজিদের দানবাক্সে রক্ষিত আনুমানিক ১০/১২ হাজার টাকা নিয়ে যায়।

ঐমসজিদ সংশ্লিষ্ট আবদুল হামিদ জানান দল মসজিদের পাশে দ্বীতল ভবনের তালা ভেঙ্গে ইমাম সাহেবের থাকার রুমটিতে ডুকে খিতাবপত্র কাপড় চোপড় ও টেবিল ডেক্স তছনছ করে পেলে।

এদিকে একই ওয়ার্ডের হযরত আবদুল কাদের জিলানী (রঃ) কল্যান ট্টাষ্টের অফিস রুমটির তালা ভেঙ্গে আলমারিত রক্ষিত খতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন, শিক্ষক, বাবুর্চীর জন্য গচ্চিত বেতনের ৪২ হাজার টাকা চোরের দল নিয়ে যায়।

সরেজমিন দেখাযায় অফিসের রক্ষিত ফাইলপত্র সহ সবকিছু ছড়িয়ে চিটিয়ে রয়েছে ফ্লোরে। আস্তানার দানবাক্সের (শনিবারের) উত্তেলিত দেড়হাজার টাকা সহ ১টি স্বর্ণের আংটিও নিয়ে যায় চোরের দলের সদস্যরা।

হিসাব রক্ষক মুহাম্মদ হানিফ জানান আমি খবর পেয়ে রাত ২ টা ৫০ মিনিটে এসে দেখি রুমের তালা ভাঙ্গা। চোরের দল পরিকল্পিত ভাবে এঘটনা ঘটিয়েছে বলে আমার ধারনা।

মাষ্টার তৌফিক জানান পুর্ব আস্তানার গেইটের সাথে থাকা দানবাক্সটি আমরা ৫/৬দিন আগে খুলেছিলাম। এরপর আর খোলা হয়নি। চোরের দল তালা ভেঙ্গে বাক্সের সব টাকা নিয়ে গেছে। তার মতে ৮/৯ হাজার টাকা হতে পারে সে বাক্সটিতে।

স্থানিয়রা জানান মসজিদ মার্কেটের একটি মুরগীর দোকানের তালা ভাঙ্গলেও চোরের দল সে দোকান থেকে কিছু নিতে পারেনি। আবদুল কাদের জিলানী কল্যান ট্টাষ্টের সভাপতি আলহাজ্জ মাহবুবুল আলম বলেন আমরা দানবাক্সের টাকা দিয়ে দরগাহ বাজার জামে মসজিদেরখতিব, ইমাম, মুয়াজ্জিন, সুইপার, হেফজ খানার দুজন শিক্ষক সহ বাবুর্চী, ফোরখানিয়া মাদ্রাসার ৩জন শিক্ষক, মাদ্রাসার ৪জন শিক্ষকের বেতন দিয়ে থাকি।

কয়েকজনকে বেতন করা পরিশোধ হলেও বাকী শিক্ষকদের বেতনের টাকা অফিসে আমানত হিসাবে রাখা হয়েছিল।কিন্তু চোরের দল সেই টাকা অফিসের তালা ভেঙ্গে নিয়ে গেছে।

আমরা প্রশাসনের নিকট দ্রুত চোর শনাক্ত করে চোরের উপযুক্ত শাস্তির দাবী জানাচ্ছি। চুরির ঘটনার সংবাদ পেয়ে চিকদাইর পুলিশ ফাড়ির এস আই আক্কাস উদ্দিন মজুমদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ ব্যাপারে রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ হারুনের কাছে ফোন করে জানতে চাইলে, চুরির ঘটনার ব্যাপারে মসজিদ ও আস্তানা শরীফের কমিটির পক্ষ থেকে কোন অভিযোগ করা হয়নি। অভিযোগ বা চুরির ঘটনায় মামলা করা হলে চুরির ঘটনা তদন্ত করে চুরির ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্বে পুলিশ ব্যবস্থা নেবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *