হালদা নদীতে ডিম ছাড়ার ভরা মৌসুমেও মাছ শিকার ও যান্ত্রিক নৌযান চলাচল


শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :
প্রাকৃতিক মৎস প্রজনন ক্ষেত্র হালদা নদীতে মা মাছ ডিম ছাড়ার ভরা মৌসুমে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জাল ও বড়শী দিয়ে নদী থেকে মাছ শিকার চলছে। নিষোধাজ্ঞা অমান্য করে নদীতে চলাচল করছে যান্ত্রিক নৌযান।

চৈত্র মাসের শুরু থেকে শ্রবন মাস পর্যন্ত সময়ে হালদা নদীতে মা মাছ ডিম ছাড়ার ভরা মৌসুম। ডিম ছাড়ার মৌসুমে প্রচন্ড বৃষ্টি ও বজ্রপাত হলে নদীতে উজান থেকে পানির প্রবল শ্রোত নেমে আসলে হালদা নদীতে মাছ ডিম ছাড়বে।

নদীতে ডিম ছাড়লে রাউজান উপজেলা ও হাটহাজারী উপজেলার ডিম সংগ্রহহকারী ও মৎস জীবিরা নৌকা নিয়ে হালদা নদীতে গিয়ে জাল দিয়ে ডিম সংগ্রহ করবে। ডিম সংগ্রহর করার পর নদীর তীরে খনন করা মাটির কুয়া ও পাকা হ্যাচারীতে সংগ্রহ করা ডিম রেখে ডিম থেকে রেনু ফুটানোর কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়বে ডিম সংগ্রহকারী ও মৎসজীবিরা। ডিম থেকে রনু ফুটানোর পর ডিম সংগ্রহকারীদের কাছ থেকে চট্টগ্রাম জেলা ও বিভিন্ন জেলার মৎস প্রকল্পের মালিক ও মাছ চাষীরা রেনু ক্রয় করে তাদের মৎস প্রকল্পে ও পুকুর জলাশয়ে ফেলে মাছ চাষ করবে।

Digital Camera

হালদা নদীতে মা মাছ ডিম ছাড়ার ভরা মৌসুমে হালদা নদীতে মা মাছের আনাগোনা বেড়েছে বলে কজয়েকজন ডিম সংহ্রকারী জানান। হালদা নদীকে মাছের অভয়শ্রম ঘোষনা করে মৎস মন্ত্রনালয় হালদা নদীর নাজির হাট থেকে কালুর ঘাট হালদা নদীর মোহনা পর্যন্ত ৪৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ নদীতে সরা বৎসর মাছ শিকার নিষিদ্ধ করা হয়। মা মাছ ডিম ছাড়ার মৌসুমে যান্ত্রিক নৌযান চলাচল নিষিদ্ব করা হয়।

নিষোধজ্ঞাকে অমান্য করে রাউজানের কচু খাইন, মোকামী পাড়া,সার্কদা, হারপাড়া, মইমকরম, উরকিরচর, সওদাগর পাড়া, খলিফার ঘোনা, পশ্চিম আবুর খীল, মগদাই সুইস গেইট, আজিমের ঘাট, কাসেম নগর, কাগতিয়া, পশ্চিম বিনাজুরী, দক্ষিন গহিরা, পশ্চিম গিিহরা মঘামাস্ত্রী বড়ূযা পাড়া, বদুর ঘোনা, কোতোয়ালী ঘোনা, নদীম পুর কাজী পাড়া, ইন্দিরা ঘাট, পশ্চিম ফতেহ নগর হাটাহাজারী উপজেলার লাঙ্গল মোড়া, ছিপাতলী, রুহুল্ল্যাপুর, মেখল, গড়দুয়ারা, আমতোয়া বাড়ী ঘোনা, মাদ্র্রাসা, দক্ষিন মার্দরাসা, ও নগরীর মোহরা এলাকায় হালদা নদীতে বড়শী, কারেন্ট জাল বসিয়ে, হাত জাল দিয়ে মাছ শিকার করছ ।

Digital Camera

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে হালদা নদীতে মাছ শিকার করার ফলে হালদা নদীতে ডিম ছাড়তে আসা মা মাছ শিকারীদের জালে ও বড়শীতে ধরা পাড়ার আশংকা রয়েছে । এছাড়া ও মা মাছের প্রজনন হুমকির মুখে পড়েছে।
হালদা নদীর মা মাছ ডিম ছাড়লে নদী থেকে ডিম সংগ্রহ করে ডিম সংগ্রহকারীরা ডিম থেকে রেনু ফুটানোর জন্য মৎস বিভাগের নির্মান করা পাকা হ্যাচারীগুলো অচল হয়ে পড়েছে। রাউজানের দক্ষিন গহিরা মোবারকখীল হ্যচারী মেরামতের কাজ করলেও রাউজানের পশ্চিম গহিরা ও কাগতিয়ায় দুটি হ্যচারী অচল হয়ে পড়ে থাকলে ও এখনো মেরামতের কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।
২৫মার্চ সরেজমিনে হালদা নদী পরিদর্শন কালে দেখা যায় দক্ষিন গহিরা মোবারকখীল হ্যাচারীটি মেরামতের কাজ করছে। পশ্চিম গহিরা ও কাগতিয়া অচল হয়ে যাওয়া হ্যাচারীর মেরামতের কোন কাজ করছেনা।

হালদা নদী পরিদর্শন কালে দেখা যায় দক্ষিন গহিরা মোবারক খীল এলাকা হাটহাজালীর গড়দুয়ারার মধ্যবর্তী স্থানে হালদা নদীতে চারটি যান্ত্রিক নৌযান নোঙ্গর করে নদী থেকে বালু উত্তোলন করছে। দক্ষিন গহিরা সিপাহির ঘাট ও গড়দুয়ারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মানাধীন বাধের পাশে নদী থেকে হাত জাল দিয়ে কয়েকজন মাছ শিকার করছে।

Digital Camera

হালদা নদীতে মাছ শিকার করার ব্যাপারে রাউজান উপজেলা মৎস অফিসার শিমুল বড়ুয়া জানান হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন অভিযাণ চালিয়ে হালদা নদীর হাটহাজারী ও রাউজান অংশ থেকে ৪১ হাজার মিটার কারেন্ট জাল উদ্বার করে। ৪৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ হালদা নদীতে যান্ত্রিক নৌযান চলাচল বন্দ্ব ও মাছ শিকার বন্দ্বে রাউজান উপজেলা মৎস বিভাগ নিয়মিত অভিযাণ চালিয়ে আসছে। উপজেলা মৎস বিভাগের জনবল কম ও যান্ত্রিক সহায়তা পর্যাপ্ত না থাকায় ৪৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ নদী পাহাড়া দেওয়া সম্ভব নয় বলে উপজেলা মৎস অফিসার শিমুল বড়ুয়া জানান ।

রাউজান পৌরসভার ২য় প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান বলেন হালদা নদী আমার এলাকার সীমনায় রয়েছে। দক্ষিন গহিরা মোবারক খীল হ্যচারীটি অচল হয়ে থাকার পর মা মাছ ডিম ছাড়ার মৌসুম শুরু হওয়ায় হ্যচারীটি মোরামতের কাজ করা হচ্ছে । হালদা নদীর মা মাছ রক্ষায় এলাকার লোকজন কাজ করছে।

রাউজানের পশ্চিম গহিরা হালদা পাড়ের বাসিন্দ্বা হালদা রক্ষা কমিটির আহবায়ক রাউজান পৌরসভার কাউন্সিলর আলমগীর আলী বলেন, হালদা নদীতে বালু উত্তোলন ও যান্ত্রিক নৌযান চলাচল নিষিদ্ব করা হয়েছে। বালু উত্তোলন কম হলে ও নৌযান চলাচল করেছে বেশী। রাতে হালদা নদীতে জাল ও বড়শী দিয়ে মাছ শিকার করা হচ্ছে। রাতে হালদা নদীতে যান্ত্রিক নৌযান চলাচল করছে বেশী। হালদা নদীতে যান্ত্রিক নৌযান চলাচল করায় যান্ত্রিক নৌযানের আঘাতে হালদা নদীতে মা মাছ ডলফিন সহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মারা গেছে গত কয়েকমাাস পুর্বে। নদীতে যান্ত্রিক নৌযান চলাচল বন্দ্ব করা না হলে হালদা নদীর মৎস প্রজনন হুমকির মুখে পড়বে বলে আশংকা করছে পৌরকাউন্সিলর আলমগীর আলী।

রাউজানের দক্ষিন গহিরা সিপাহির ঘাট তালেব শাহ বাড়ীর বাসিন্দ্বা আবু তৈয়ব বলেন গত বৎসর মা মাছ ডিম ছাড়ার মৌসুমে নদী থেকে ডিম সংগ্রহ করেছি । এবৎসর নদীতে মা মাছ ডিম ছাড়লে নদী থেকে ডিম সংগ্রহ করার আশায় দুটি নৌকা ও জাল নিয়ে হালদা নদীতে মা মাছ ডিম ছাড়ার প্রতিক্ষার প্রহর গুনছি ।

এ ব্যাপারে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজার কাছে জানতে চাইলে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বলেন হালদা নদীর মা মাছ রক্ষায় অভিযাণ চালানোর জন্য আমাকে ও হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে । হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন অভিযাণ পরিচালনা করে নদী থেকে মাছ শিকার করার সময়ে জাল উদ্বার করেছে। হালদা নদীতে মা মাছ রক্ষায় আমি ও অভিযান চালাবো। রাউজান উপজেলা মৎস অফিসার শিমুল বড়ূযা জানান মাছ শিকারিরা দিনে নদীতে মাছ শিকার করেনা গভীর রাতে হালদা নদীতে মাছ শিকার করে ।

নিউজ ও বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন:

শফিউল আলম, প্রধান সম্পাদক

সাহেদুর রহমান মোরশেদ, সম্পাদক ও প্রকাশকমোবাইল- ০১৮১৮-১১৭৪৭০

ইমেইল : raozan786@gmail.com

raozanbarta24.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*