রাউজানে পিতার বিক্রয় করে দেওয়া শিশু চট্টগ্রাম নগরী থেকে উদ্ধার

শফিউল আলম, রাউজান 

কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার শাপলাপুর এলাকার বাসিন্দ্বা আহসান উল্লাহ এনজিও ঋনের টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হয়ে তার ৭ বৎসর বয়সের সন্তান মোঃ রাব্বিকে ৬০ হাজার টাকা দিয়ে বিক্রয় করে দেয় বোয়ালখালী উপজেলার দুবাই প্রবাসী মোরশেদ খানের স্ত্রী বাচু আকতারের কাছে । (((বিজ্ঞপ্তি- মোবাইলের যে কোন সমস্যা, মেরামত/ মোবাইল ফ্লাশ/ ভার্সন আপডেট / কান্ট্রি লক, জিমেইল লক, এমআই লক, আই ফোনের আইক্লাউড লক সহ যেকোন লক খুলতে যোগাযোগ করুন- ১। রহমানিয়া এন্টারপ্রাইজ সেইলস্ & সার্ভিসিং, ভারতশ্বরী প্লাজা, পথেরহাট, নোয়াপাড়া, রাউজান, চট্টগ্রাম।মোবাইল-01719-117470 ))) ২. মোবাইল থেরাপী, শাহ আমানত সিটি কর্পোরেশন মার্কেট, দোকান নং-৬৯, ২য় তলা, জুবলী রোড, আমতল, চট্টগ্রাম। মোবাইল-01719-117470 )))

মা ছেলে ও রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা

আহসান উল্লাহ তার ৭ বৎসর বয়সের সন্তান রাব্বিকে টাকা দিয়ে গোপনে বিক্রয় করার ঘটনা আহসান উল্লাহর স্ত্রী নাসিমা আকতার জানেনা। আহসান উল্লাহ ও তার স্ত্রী নাসিমা আকতার তাদের শিশু সন্তান রাব্বি নিখোজঁ হয়েছে বলে এলাকায় ও আত্বিয় স্বজনদের বাড়ীতে রাব্বিকে খুজ করে। 

রাব্বির কোন খোজ না পেয়ে নাসিমা আকতার তার স্বামী আহসান উল্লাহকে সন্দেহ করে। এলাকার লোকজনের সহায়তায় নাসিমা আকতার গোপনে সংবাদ পায় তার স্বামী আহসান উল্লাহ রাব্বিকে ৬০ হাজার টাকা নিয়ে প্রাবাসী মোরশেদ খানের আত্বিয় রাউজান উপজেলার কচুখাইনের জাকের হোসেনের মাধ্যমে প্রবাসী জাকের হোসেনের স্ত্রী বাচু আকতারের কাছে বিক্রয় করে দেয় । 

এই সংবাদ পেয়ে নাসিমা আকতার রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্ল্যাহর কাছে বিষয়টি অবহিত করলে রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহ নোয়াপাড়া পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ এস আই জাবেদকে বিষটি তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করার নির্দেশ দেয় । 

রাউজান নোয়াপাড়া পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ জাবেদ রাউজানের কচুখাইন এলাকা থেকে জাকের হোসেনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার দেওয়া তথ্যমতে রাব্বির পিতা আহসান উল্লাহকে আটক করে। 

সর্বশেষ গত ১ অক্টোবর মঙ্গলবার দিবাগত রাতে চট্টগ্রাম নগরীর দিদার মাকের্ট এলাকায় অভিযাণ চালিয়ে প্রবাসী মোরশেদ খানের বাসা থেকে রাব্বিকে উদ্বার করে। প্রবাসী মোরশেদের স্ত্রী বাচু আকতার জানান তার চার কন্য সন্তান রয়েছে । ছেলে সন্তান না থাকায় আহসান উল্লাহ রাব্বির নিজের মাতা মারা গেছে বলে মিথ্যা কথা বলে রাব্বিকে ৬০ হাজার টাকা দিয়ে বাচু আকতারের কাছে তিন মাস পুর্বে বিক্রয় করে। বাচু আকতার রাব্বিকে ৬০ হাজার টাকা দিয়ে ক্রয় করে তাকে নিজ সন্তানের মতো লালন পালন করে। 

রাবিব্বকে উদ্বার করার পর রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহ ও এস আই জাবেদ তার মাতা নাসিমা আকতারের কাছে সোপর্দ করে ২ অক্টোবর বুধবার দুপুরে। রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহ বলেন ৭ বৎসর বয়সের শিশু রাব্বিকে উদ্বার করে তার মাতা নাসিমা আকতারের কাছে সোর্পদ করা হয়েছে । হারানো শিশু সন্তান রাব্বিকে পেয়ে তার মাতা নাসিমা আকতার ও তার স্বজনেরা মহেশখালীতে নিয়ে যায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*