চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর এলাকা পরিচালক নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ রাউজান অফিসের অধীনে এলাকা নং-০২ এর পরিচালক নির্বাচন নিয়ে গুরুতর অনিয়মের অভিযোগ করেছে পরিচালক প্রার্থী গোলাম সরওয়ার, শহিদুল আলম, মোঃ ইকবাল হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার আরফান উল্লাহ চৌধুরী। 

পরিচালক প্রার্থী গোলাম সরওয়ার, শহিদুল আলম, মোঃ ইকবাল হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার আরফান উল্লাহ চৌধুরী শুক্রবার সাংবাদিকদের নিকট অভিযোগ করে বলেন পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর অধীন এলাকা নং-২ ফটিকছড়ি অংশে পরিচালক পদের নির্বাচন নিয়ে একটি হেন্ড বিল আকারে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। সে সুত্রে জানতে পেরে ১৭ নভেম্বর অভিযোগকারী প্রার্থীরা ও পুর্বের পরিচালক শহিদুল ইসলাম সহ ৫ জনে নমিনেশন ফরম ক্রয় করে যথাযথভাবে পুরন করে ২১ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন সদস্য তওসিফ জামিল চৌধুরীর নিকট জমা প্রদান করেন। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন কর্তৃক পুরনকৃত ফরমের অংশ যাহা নমিনেশন প্রার্থীকে ফরম জমা দেওয়ার পর রিসিফ কপি দেওয়া হয় তাহা দেয়নি। পরবর্তীতে ১২ ডিসেম্বর নমিনেশন যাচাই-বাছাই করে বিকাল ৪ ঘটিকায় বৈধ তালিকা প্রকাশ করার কথা থাকলেও প্রধান রির্টানিং অফিসার কাজি রিয়াদ হাসানের নের্তৃত্বে নির্বাচন কমিশন তাদের মনোনীত প্রার্থীকে পরিচালক নির্বাচিত করার জন্য অত্যন্ত গোপনে ৪ ঘটিকার সময় উপস্থিত পরিচালক প্রার্থীদের কিছু না জানিয়ে ৫ জন প্রার্থীর মধ্যে তাদের মনোনীত প্রার্থীকে বৈধ ঘোষনা করে বাকী ৪ জনের নমিনেশন বাতিল করে রাতে নোটিশ বোর্ডে বিজ্ঞপ্তি দেন। এটা জানতে পেরে অভিযোগকারীরা যোগাযোগ করলে কি কারনে নমিনেশন বাতিল করা হয়েছে তাহা নির্বাচন কমিশন কর্তৃক পুরনকৃত ফরমে লিখিতভাবে প্রার্থীদের দেওয়ার কথা থাকিলেও নমিনেশন জমা দেওয়ার সময় যেভাবে রিসিভ কপি প্রার্থীদের দেওয়া হয়নি। নির্বাচন কমিশন ফরমের বাতিল করার যে অংশ আছে সে অংশে বাতিলের কারন লিখে প্রার্থীদের দেওয়ার নিয়ম থাকলেও দেয় নি।

পরবর্তীতে অভিযোগকারী পরিচালক প্রার্থীরা নোটিশ বোর্ডে লাগানো প্রার্থীদের তালিকা দেখে জানতে পারে নমিনেশন বাতিলকৃত ৪ জনের জন্যই একই নিয়ম বাতিলের কারন লিখেছে “প্রস্তাবক ও সমর্থকদ্বয়ের আবেদনপত্র নিয়ম অনুযায়ী পুরন করা হয়নি” বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ থাকার পরও ঠিকমত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হয়নি বলে বাতিলের কারন লিখে। কিন্তু তাদের প্রচারিত নির্বাচন বিজ্ঞপ্তির ৭ নং কলামে লিখা আছে নির্বাচনের ৯০ দিন আগের অর্থাৎ অক্টোবর মাস ২০১৯ ইং পযর্ন্ত  প্রার্থীদের সব বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ থাকতে হবে। প্রার্থীরা অভিযোগ করে বলেন আমাদের সব বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ থাকা সত্বেও যথাযথভাবে নমিনেশন ফরম পুরন করে জমা দেওয়ার পরও শুধুমাত্র তাদের মনোনীত প্রার্থী ২০১৩ সাল হতে যিনি পরিচালক আছেন শহিদুল ইসলামকে আবারোও পরিচালক নির্বাচিত করার জন্য লীল নকশার মাধ্যমে রাতের অন্ধকারে আমাদের লিখিতভাবে কিছু না জানিয়ে হাস্যকর অসংগতির কারন দেখিয়ে আমাদের প্রার্থীতা বাতিল করে একতরফা নির্বাচন করে যেনতেন ভাবে পরিচালক নির্বাচন করার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমরা এই গুরুতর অনিয়মের প্রয়োজনীয় তদন্ত করে আমাদের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষনা করার জন্য বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যানের দৃষ্টি কামনা করছি।

এব্যাপারে অভিযোগকারী পরিচালক প্রার্থীরা রির্টানিং অফিসার কাজি রিয়াদ হাসানের নিকট তাদের প্রার্থীতা বাতিলের কারন জানতে চাইলে তিনি তাদের কোন সদুর্ত্তর দিতে পারেননি বলে তারা জানান। প্রস্তাবকারী ও সমর্থকদ্বয়ের ফরম পুরনে কি অনিয়ম হয়েছে তাহা তিনি লিখিতভাবে প্রার্থীদের দেয়নি। প্রার্থীরা চ্যালেঞ্জ করে বলেন তাদের নামের বিপরিতে অক্টোবর ২০১৯ পযর্ন্ত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ রয়েছে। এ ব্যাপারে তারা ফটো কপি করে রাখা তাদের দাখিলকৃত নমিনেশন ফরমের পুরো একসেট সাংবাদিকদের দেখান। 

নির্বাচন কমিশনের সদস্য চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর এ,জি, এম সদস্য সেবা তওসিফ জামিল চৌধুরীর কাছে ফোন করে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি গাড়ীতে রয়েছে দু ঘন্টা পর ফোন করার জন্য বলেন। পরবর্তী দু ঘন্টা পর ১৩ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১১ টার সময়ে নির্বাচন কমিশনের সদস্য চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর এ,জি, এম সদস্য সেবা তওসিফ জামিল চৌধুরীর ব্যবহৃত মোবাইল ০১৭৬৯৪০০৩৫১ নম্বরে একাধিকবার ফোন করলে ওপল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর এ,জি, এম সদস্য সেবা তওসিফ জামিল চৌধুরী ফোন রিসিভ করেনি । 

ফটিকছড়ি ১ এলাকায় পরিচালক পদে আবদুর রাজ্জাককে বিনা প্রতিদন্দিতায় পরিচালক পদে বিনা প্রতিদন্দিতায় নিবার্চিত ঘোষানা করে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর অফিসের নেটিশ বোর্ডে নোটিশ টাঙ্গিয়ে দিয়েছে ।  পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর পরিচালক পদে পুর্বে পরিচালক পদে গ্রাহকদের ভোটে পরিচালক নির্বাচিত করা হলে ও গত এক যুগ ধরে কোন নির্বাচন হয়নি। রাজনৈতিক নেতা ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর কর্মকর্তাদের মনোনিত ব্যক্তিদের বিনা প্রতিদন্দিতায় পরিচালক নির্বাচিত করে আসছে । গ্রাহকের ভোটাধিকার ব্যতিত পরিচালক নির্বাচন করায় গ্রাহকরা ক্ষুদ্ব

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*