জানাজায় না এসে ঘরে বসে দোয়া করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ফারাজ করিম

রাউজানবার্তা ডেস্ক :

জানাজায় না এসে ঘরে বসে দোয়া করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ফারাজ করিম চৌধুরীর 

তিনি আরও আহবান করেন আগামীকাল বাদে জুমা রাউজানের গহিরা কলেজ মাঠে আমার মেঝ চাচা মরহুম ফজলে রাব্বি চৌধুরীর জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।

একজন মুসলমান হিসেবে মৃত্যুর পর জানাজা পড়ানোর বিধান থাকায় আমরা পারিবারিকভাবে খোলা মাঠে জানাজার নামাজ পড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমার বাবা বুকে পাথর রেখে উনার পিতৃতুল্য বড় ভাই হওয়া সত্ত্বেও রাউজানবাসীর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে জানাজায় না এসে বরং সকলকে ঘরে বসে দোয়া করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। 

আমিও সকলের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি, করোনাভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় আপনারা দয়া করে কেউ জানাজায় আসবেন না। পরিবারের একজন সদস্যকে হারানোর বেদনা আমাদের সহ্য করতে কষ্ট হচ্ছে। আমরা চাই না জানাজায় এসে আপনাকে ও আপনাদের পরিবারকে করোনার ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিতে। বলতে কষ্ট হলেও আপনাদের কাছে করজোড়ে অনুরোধ জানাচ্ছি সবাই নিজ নিজ স্থান হতে আমার চাচার জন্য দোয়া করবেন।

রাউজানে করোনায় তিন পুলিশ এক আনসার সদস্য সহ ৫০ জন আক্রান্ত

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজান থানার এস আই আবু বক্কর, এ এস আই শহীদুল্লাহ, পুলিশ কনষ্টেবল মফিজ, বিশেষ আনসার বুলবুল করেনা রোগে আক্রান্ত হয় । আক্রান্ত পুলিশ ও আনসার সদস্যরা তারা নিজ বাসায় আইসেলেশেন থেকে চিকিৎসা করছেন বলে রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্ল্যাহ জানান। 

জনগনকে করোনার প্রার্দুভাব থেকে রক্ষা করার জন্য দায়িত্ব পালন কালে পুলিশ ও আনসার সদস্য করোনা রোগে আক্রান্ত হয় বলে রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্ল্যাহ জানান । 

রাউজানে এ পর্যন্ত করোনা রোগে আক্রান্ত হয়েছে পুলিশ আনসার সহ ৫০ জন বলে জানান রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুরে আলম দীন । ​

দানবীর আবদুল অদুদ চৌধুরীর প্রতিষ্টিত অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে: শতভাগ পাশ

এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে ৬৫ বৎসর ধরে পর পর তিন বৎসর ধরে এস এস সি ও জে, এসসি পরিক্ষায় শতভাগ পাশ

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজানের নেয়াজিশপুরে দানবীর আবদুল অদুদ চৌধুরীর প্রতিষ্টিত নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে ৬৫ বৎসর ধরে। পর পর তিন বৎসর ধরে এস এস সি ও জে, এসসি পরিক্ষায় শতভাগ পাশ করে রাউজানের অন্যতম শিক্ষা প্রতিষ্টান হিসাবে রাউজান ও চট্টগ্রামে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় । 

রাউজান উপজেলার ১৫ নং নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের বাসি›দ্বা দানবীর ও শিক্ষানুরাগী মরহুম আবদুল অদুদ চৌধুরী ১৯৬৫ সালে প্রতিষ্টা করেন নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় । নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্টা লগ্ন থেকে নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের ফতেহ নগর, নোয়াজিশপুর, পশ্চিম ফতেহ নগর, নদীম পুর, চিকদাইর দক্ষিন সর্তা, চিকদাইর, ফটিকছড়ি উপজেলার আবদুল্লাহ পুর, জাফত নগর এলাকার ছেলে মেয়েরা নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে আসছে । 

নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, উচ্চ বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, আইনজীবি পদে অধিষ্টিত । এছাড়া ও নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অনেকে সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্টানে উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা রয়েছে। 

সরকারী বেসরকারী ব্যাংকের উচ্চ পদস্ত কর্মকর্তা পদে আসিন রয়েছে নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী । নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়টি গত কয়েক বৎসরের মধ্যে রাউজানের সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর একান্ত প্রচেষ্টায় ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সরোয়ার্দি সিকদারের প্রচেষ্টায় ব্যাপক অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। 

নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বর্তমানে ১৩ জন এমপি ও ভুক্ত শিক্ষক ৩জন স্কুলের সৃষ্টি বেতনে নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষক শিক্ষিকা সহ ১৬ জন শিক্ষক শিক্ষিকা ৬শত জন শিক্ষার্থীকে পাঠাদান করছেন। নোয়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় পর পর তিন বৎসর ধরে এস এস সি ও জে, এসসি পরিক্ষায় শতভাগ পাশ  করে রাউজানে শ্রেষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্টান হিসাবে পরিচিত লাভ করেছেন । 

এবারের এস এস সি পরিক্ষায় শতভাগ পাশ করা ছাড়া ও ৯ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে । 

নায়াজিশপুর ফতেহ নগর অদুদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নোয়াজিশপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সরোয়ার্দি সিকদার বলেন,নিয়মিত অভিবাবক সমাবেশ ও স্কুলে শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি নিশ্চিত ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য শিক্ষকদের নিয়ে কয়েকটি টিম গঠন করা হয় । একজন শিক্ষার্থী একদিন স্কুলে অনপস্থিত হলে টিম শিক্ষার্থীর বাড়ীতে গিয়ে অনুপস্থিত কারন নির্ণয়, রাতে শিক্ষার্থীরা ঘরের মধ্যে বসে লেখাপড়াি করছেন কিনা স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য শিক্ষকদের নিয়ে গঠিত টিম নিয়মিত তদারকি করায় গত তিন বৎসর ধরে এস এস সি ও জে এস এস সি পরিক্ষায় শিক্ষার্থীরা শতভাগ পাশ করতে সক্ষম হয়েছে ্ ।

শোক সংবাদ : ফজলে রাব্বি চৌধুরী মানিক

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

পুর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদের বিরোধী দলীয় নেতা মরহুম একে এম ফজলুল কবির চৌধুরী ২য় পুত্র ও রেলপথ মন্ত্রনালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপির মেঝ ভাই এবি এম ফজলে রাব্বি চৌধুরী মানিক ৪ জুন বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে বারটার সময়ে চট্টগ্রাম নগরীর বাস ভবনে হৃদ যন্ত্রের ক্রিয়া বন্দ্ব হয়ে ইন্তেকাল করেন ( ইন্না…রাজেউন )। 

এবি এম ফজলে রাব্বি চৌধুরী মানিকের মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিলো ৭০ বৎসর । এবি এম ফজলে রাবিব্ চৌধুরীর জানাজার নামাজ ৫ জুন শুক্রবার জুমার নামেজের পর রাউজানের গহিরা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্টিত হবে । 

রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীর মৃত্যুতে রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী আবদুল ওহাব, সাধারন সম্পাদক অধ্যক্ষ কফিল উদ্দিন চৌধুরী, রাউজান পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজ, সাধারন সম্পাদক সৈয়দ আবদুল জব্বার সোহেল, রাউজান উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান মাসুদ, সাধারন সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন পিপলু সহ উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করে শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন ।

আল্লামা হাশেমীর মৃত্যুতে রাউজানের সুন্নি জনতার শোক

বাংলার প্রবীণ আলেমে দ্বীন, ওস্তাজুল ওলামা, শাইখুল মাশায়েখ,শাইখুল হাদিস,ছাত্র রাজনীতির আদর্শিক রোল মডেল বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনার প্রতিষ্টাতা পৃষ্টপোষক, ওস্তাজুল আসাতাজা, ইমামে আহলে সুন্নাত আল্লামা কাযী নুরুল ইসলাম হাশেমী ইন্তেকাল করায় গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন করেছেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত বাংলাদেশ,বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট,যুবসেনা,ছাত্রসেনা রাউজান উপজেলা (দক্ষিণ) শাখা।

এছাড়াও আঞ্জুমানে খোদ্দামুল মুসলেমিন কেন্দ্রীয় ট্রাস্টি বোর্ড,আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াত বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট পৃথক পৃথক ভাবে শোক প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য গত ২ জুন মঙ্গলবার ভোর ৫টায় নগরীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বার্ধ্যক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি ইন্তেকাল করেন।  (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন)।

আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত বাংলাদেশ রাউজান দক্ষিণের সভাপতি অধ্যক্ষ আল্লামা এস এম আবু মোস্তাক আলকাদেরী, সাধারণ সম্পাদক আল্লামা মুফতি জিল্লুর রহমান হাবিবী, সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ আমান, রাউজান উপজেলা ইসলামী ফ্রন্টের সভাপতি অধ্যক্ষ আল্লামা ইলিয়াছ নুরী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আবুল কাশেম রেজবী, যুবসেনা রাউজান দক্ষিণ এর সভাপতি যুবনেতা মাওলানা সৈয়দ শওকত রেজভী,সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম ও ছাত্রসেনা রাউজান উপজেলার সভাপতি ছাত্রনেতা মুহাম্মদ রবিউল হোসাইন সুমন ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন জাবেদ পৃথক পৃথক ভাবে শোক  জানিয়েছেন।-বিজ্ঞপ্তি

রাউজানে করোনা রোগে আক্রান্ত ও মৃত্যুবরনকারী পরিবারের সদস্যদের খাবার প্রদান

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা : 

রাউজানের সাংসদ ফজলে করিম চৌধুরীর নির্দেশে  করোনা রোগে আক্রান্ত ও মৃত্যুবরনকারী পরিবারের সদস্যদের খাবার প্রদান হয়।

রাউজানের সাংসদ ফজলে করিম চৌধুরীর নির্দেশে করোনা রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরনকারী ইনসুরেন্স কর্মকর্তা মহসিন চৌধুরীর পরিবারের সদস্যরা লকডাউনে থাকাবস্থায় খাওয়ার জন্য খাদ্য সামগ্রী তাদের ঘরে পৌছে দেয় রাউজান পৌরসভা কাউন্সিলর কাজী ইকবাল। 

 ৩ জুন বুধবার সকালে করোনা রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরনকারী ইনসুরেন্স কর্মকর্তা মহসিন চৌধুরীর পরিবারের সদস্যদের খাবার প্রদান করা হয় । এসময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন রাউজান পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, ব্যবসায়ী কে এম আবদুল মতিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন পিপলু। 

অপরদিকে ৩ জুন বুধবার দুপুরে রাউজান পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ডের সুলতানপুর কাজী পাড়া এলাকায় কওেরানা রোগে আক্রান্ত আবদুল হাকিমের ঘরে সাংসদ ফজলে করিমের নির্দেশে এক মাসের খাদ্য সামগ্রী নিয়ে উপস্থিত হয় রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ। একমাসের খাদ্য সামগ্রী করোনা রোগে আক্রান্ত আবুদল হাকিমের কাছে প্রদান করা হয়। 

এসময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন রাউজান পৌরসভার কাউন্সিলর শওকত হাসান চৌধুরী, রাউজান পৌরসভা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক জিয়াউল হক রোকন, ছাত্রলীগ নেতা নাসির উদ্দিন্ ।

করোনা :রাউজানে উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরন কারীর লাশ দাফন করলেন গাউসিয়া কমিটি

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা: 

রাউজানের পাহাড়তলী বদুপাড়ায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরন কারী আবদুল হকের (৬০)  লাশ দাফন করলেন গাউসিয়া কমিটির নেতৃবৃন্দ্ব । 

 ৩ জুন বুধবার সকাল ১১ টার সময়ে গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ পাহাড়তলী ইউনিয়নের বদুপাড়া সৈয়দ বাড়ী ইউনিট শাখার সাধারন সম্পাদক নেছারুল হকের পিতা আবুল হক (৬০) এর লাশ দাফন কার্যক্রম পরিচালনা করেন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ চট্টগ্রাম উত্তর জেলা শাখার প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব আহসান হাবিব চৌধুরী। 

করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরনকারী আবদুল হকের লাশ দাফন করার সময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ রাউজান উপজেলা দক্ষিন শাখার সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ হানিফ, উত্তর জেলার সদস্য আহম্মদ সৈয়দ, প্রফেসর জামাল উদ্দিন, দক্ষিন রাউজান শাখার সদস্য সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া, উরকিরচর ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদকব আমান উল্লাহ আমান, কদলপুর ইউনিয়ন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল হোসেন সুমন, 

গাউসিয়া কমিটির নেতৃবেন্দের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন আবদুস সত্তার, আবদুল গফুর, কায়েস , আবদুল জব্বার। মরহুম আবদুল হকের জানাজায় ইমামতি করেন মরহুম আবদুল হকের কনিষ্ট পুত্র মাওলানা রিদয়ানুল হক ।  

রাউজানে কৃষকদের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজান উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর ও উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা অফিসের উদ্যোগে সরকার কর্তৃক প্রতি কেজি ২৬ টাকা করে কৃষকের কাছ থেকে বোরো ধান ক্রয় শুরু হয়েছে। 

 ৩ জুন বুধবার দুপুরে রাউজান উপজেলা খাদ্য গুদামে হলদিয়ার কৃষক মোঃ ইকবালের কাছ থেকে প্রতি কেজি ২৬ টাকা করে এক মেট্রিক টন বোরো ধান ক্রয় করার মাধ্যমে বোরো ধান সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধন করেন রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ। 

এসময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন রাউজান উপজেলা কৃষি অফিসার শাব্বির আহম্মদ, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা তিমির বরণ দে, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রন অফিসার তরুন কান্তি চাকমা, উপ৪জেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার নিয়াজ মোরশেদ, উপজেলা উপ সহকারীূ কৃষি কর্মকতা সনজিব কুমার সুশীল । 

রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ জানান, রাউজানে এবার ৩শত ৭৫ মেট্রিক টন বোরো ধান কৃষকের কাছ থেকে প্রতি কেজি ২৬ টাকা প্রতি টন ২৬ হাজার টাকা করে সরকার ক্রয় করবে । আগামী ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত সময়ের মধ্যে কৃষকের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহ করা হবে ।

রাউজানে পল্লী বিদ্যুৎ এর মনগড়া বিল; সামাজিক দুরত্বের বালাই নেই, লাইন ম্যানের করোনা

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

করোনা ভাইরাসের সংক্রমক থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সামাুিজক দুরত্ব বজায় রেখে সরকারী বেসরকারী অফিসে কাজ করা ও হাটবাজারে ব্যবসা প্রতিষ্টানে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কেনাকাটা করা ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে যানবাহনে যাত্রী পরিবহন করার সরকারী নির্দেশনা রয়েছে। 

সরকারী নির্দেশনা অমান্য করে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সদর দপ্তর রাউজানে ও নোয়াপাড়া অফিসে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে বিপুল পরিমাণ লোক বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ ও মিটার রিডিং না দেখে মনগড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল সংশোধন করে বিল পরিশোধ করার জন্য হাজার হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহক ভীড় করছে। 

করোনা রোগে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর লাইনম্যান গ্রেড-১ আবদুর রউফ আক্রান্ত হলে ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সদর দপ্তর রাউজানে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত না করে হাজার হাজার গ্রাহক  বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ ও মনগড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল সংশোধন করার জন্য ভীড় করছে। 

করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরু হওয়ার পর থেকে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মিটার রিডার গ্রাহকের বাড়ী ও ব্যবসা প্রতিষ্টানে উপস্থিত হয়নি। অফিস থেকে মনগড়া বিদ্যুৎ বিল গ্রাহকের মোবাইল ফোনে এসএমএস করে পরিশোধ করার তাগিদ দেওয়া হয়। কিছু কিছু এলাকায় মিটার রিডার না গেলেও অফিস থেকে মনগড়া বিদ্যুৎ বিল গ্রাহকের ঘরে ও ব্যবসা প্রতিষ্টানে পৌছে দেয় ম্যাসেঞ্জার দিয়ে। 

মনগড়া বিদ্যুৎ বিলে পুর্বের বিলের চেয়ে দ্বিগুন, তিনগুন বেশী টাকার পরিমান বসিয়ে বিল দেওয়া হয়েছে বলে রাউজানের বিভিন্ন এলাকার কয়েকশত গ্রাহক অভিযোগ করেন। মিটার রিডিং না দেখে মনগড়া বিদ্যুৎ বিল দেওয়ার পর অনেক গ্রাহক বিদ্যুৎ বিল সংশোধন না করে সময়ের অভাবে ও করোনা রোগে আক্রান্ত হওয়ার ভয়ে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করছেন বলে সরজমিনে পরিদর্শন কালে গ্রাহকেরা অভিযোগ করেন। 

প্রতিদিন সকাল থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সময়ে রাউজানের বিভিন্ন এলাকা থেকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মনগড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল নিয়ে গ্রাহকেরা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে ছুটে এসে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে বিদ্যুৎ বিল সংশোধন করে সংশোধিত বিলের টাকা পরিশোধ করছেন।  

পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির অফিস ঘুরে কয়েকজন গ্রাহকের কাছ থেকে জানা গেছে পুর্বের পরিশোদ করা বিলের টাকা ও নতুন বিলের সাথে বাসিয়ে দিয়ে  গ্রাহকদের বিল দেওয়ার পর পুরাতন বিলের টাকা পরিশোধের বিল যাদের কাছে সংরক্ষিত রয়েছে তারা পুরাতন বিলের পরিশোধের বিল দেখানোর পর পরিশোধ করা বিলের টাকা বাদ দিয়ে নতুন করে বিল দেওয়ার পর বিদ্যুৎ বিলের টাকা পরিশোধ করেন । 

পুর্বের পরিশোধ করা বিলের কপি যে সব গ্রাহকের কাছে সংরক্ষিত নেই তাদেরকে পুর্বের মাসের পরিশোদ করা বিলের টাকা পরিশোধ করতে হচ্ছে বলে কয়েকজন গ্রাহক অভিযোগ করেন । 

রাউজান পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের ছত্র পাড়া এলাকার বাসি›দ্বা সোনা মিয়ার পুত্র পল্লী বিদ্যুৎতের গ্রাহক সাহাবুউদ্দিন অভিযাগে করে বলেন, তার বই নং-১১ হিসাব নং-৯৮৭০, মিটার নং- ৩০০৬৩০ । করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরু হওয়ার পুর্বে তার ঘরের বিদ্যুৎ বিল ২শত ৮০ টাকা পরিশোধ করা হয়। করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরু হওয়ার পর থেকে মিটার রিডার তার ঘরে গিয়ে মিটার রিডিং তুলে না এনে অফিস থেকে  পুর্বের ২শত ৮০ টাকা বিলের তিনগুন বেশী করে  এপ্রিল মাসে ৭শত ১৩ টাকা মে মাসে ৭শত ২ টাকার বিদুৎ বিল দেযা হয়। মনগড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল সংশোধন করে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার জন্য ৩ জুন বুধবার সকাল ১১ টার সময়ে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর সদর দপ্তর রাউজানে যায়। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির লাইনম্যান করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ ও অফিসে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখে হাজাার হাজার গ্রাহক জড়ো হওয়ার দৃশ্য দেখে পল্লী বিদ্যুৎ অফিস থেকে বিল সংশোধন না করে বাড়ীতে ফিরে আসি। 

পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকেরা অভিযোগ করে আরো বলেন মনগড়া অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল প্রদান ও মাইক দিয়ে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা না হলে বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন করবে বলে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি প্রচারনা করায় প্রতিদিন হাজার হাজার গ্রাহক ব্যবহৃত মিটার রিডিংয়ের বিদ্যুৎ বিলের চেয়ে অতিরিক্ত বিল সংশোধন করে বিল পরিশোধ করার জন্য হুমড়ী খেয়ে পড়ছে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে। করোনা ভাইরাসের পুর্বে বিদ্যুৎ বিল ব্যাকে নিলে ও করেনাি ভাইরাসের প্রকোপ সৃষ্টি হওয়ার পর থেকে ব্যাংকের কোন শাখায় বিদ্যুৎ বিলৈর টাকা না নেওয়ায়  পল্লী বিদ্যুৎতের গ্রাহকেরা বিদ্যুৎ বিল পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে পরিশোধ করতে যাওয়ার হাজার হাজার গ্রাহক প্রতিদিন ভীড় করছে।  

এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর জেনারেল ম্যানেজার আবুল কালঅম আজাদ বলেন গ্রাহকের ব্যবহৃত মিটার রিডিংয়ের চেয়ে অতিরিক্ত রিডিং বসিয়ে বিদ্যুৎ বিল করা হলে তা সংশোধন করে প্রকৃত রিডিং ব্যবহারের বিদ্যুৎ বিলের টাকা নেওয়া হচ্ছে । চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর লাইনম্যান গ্রেড -১ আবদুর রউফ করোনা রোগে আক্রান্ত হওয়ায় ৩ জুন বুধবারা সকাল থেকে অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম সাময়িক ব্যহক হয় । করোনা আক্রান্ত লাইনম্যন আবদুর রউফকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সদর দপ্তর রাউজানে একটি খালী বাসায় আইসোশেনে রাখা হয়েছে । লাইনম্যান আবদুর রউফ করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সদর দপ্তর রাউজানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হয়েছে। 

এ ব্যাপারে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সদর দপ্তর রাউিজান ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জোনাল অফিসে বিদ্যুৎ বিলের টাকা পরিশোধ করতে গ্রহকদের ভীড় কমানোরে জন্য ব্যংকের শাখাগুলোকে বিদ্যুৎ বিলের টাকা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

রাউজানে সাংসদের নির্দেশে ২৫ হাজার ভবঘুরে, পরিবহন শ্রমিক, রিক্সা চালকদের খাদ্য সহায়তা দিলেন পারভেজ

শফিউল আলম, রাউজানবার্তা :

রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র ও রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজ প্রতিনিয়ত অসহায়, দরিদ্র, মানসিক প্রতিবন্দ্বী, মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তিদের খাদ্য সহায়তা প্রদান, দরিদ্র পরিবারের লোকজনকে চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা, দরিদ্র পরিবারের মেয়ের বিবাহে আর্থিক সহায়তা, দরিদ্র পরিবারের ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার জন্য সহায়তা প্রদান করে আসছে। 

করোনার প্রার্দুভাব শুরু হলে রাউজানে যানবাহন চলাচল বন্দ্ব, ব্যবসা প্রতিষ্টান বন্ধ হয়ে যায় । হাজার হাজার দিনমজুর, পরিবহন শ্রমিক, ভবঘুরে, ভিক্ষুক, মানসিক প্রতিব›দ্বী, মানসিক ভারসাম্যহীন ব্যক্তি কর্মহীন হয়ে পড়ে । হাজার হৃত দরিদ্র পরিবারের সদস্যদের খাদ্য সংকট দেখা দেয় । 

হৃত দরিদ্র পরিবারের দুঃসময়ে রাউজানের সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী ও তার পুত্র তরুন আওয়ামী লীগ নেতা ফারাজ করিম চৌধুরীর নির্দেশে রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র ও রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজ অসহায় দরিদ্র কর্মহীন, পরিবহন শ্রমিকদের এসে দাড়ায়। 

রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র ও রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজ তার এলাকা রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডে ৫ হাজার অসহায় কর্মহীন দরিদ্র পরিবারের সদস্যদের খাদ্য সহায়তা প্রদান করে তাদের সংকট নিরসন করেন । রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র ও রাউজান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজ তার ওয়ার্ড রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড ছাড়া ও রাউজান পৌরসভার আরো ৮টি ওয়ার্ড রাউজানের ১৪টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ২০ হাজার অসহায় দরিদ্র কর্মহীন দুস্থঃ পরিবারের সদস্যদের ঘরে ঘরে উপস্থিত হয়ে দলীয় নেতা কর্মীদের নিয়ে খাদ্য সামগ্রী, মাক্স ও হ্যন্ড স্যনিটেজার, সাবান পৌছে দেয় । 

রাউজান পৌরসভার প্যনেল মেয়র জমির উদ্দিন পারভেজ বলেন করোনা ভাইরাসের প্রার্দুভাব শুরু হলে রাউজানের হাজার হাজার পরিবার ঘরব›দলিবী হয়ে পড়ে। অসহায়, দরিদ্র কর্মহীন, দুস্থঃ পরিবারের সদস্যদের খাদ্য সংকট সৃষ্টি হয় । রাউজানের সাংসদ এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী ও তার পুত্র ফারাজ করিম চৌধুরীর নির্দেশে আমার এলাকা রাউজান পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড সহ রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় ২৫ হাজার অসহায়, দরিদ্র কর্মহীন, দুস্থঃ পরিবারের সদস্যদের খাদ্যসহায়তা প্রদান করে খাদ্য সংকট মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি ।